শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

"প" "P" দিয়ে হিন্দু মেয়ে শিশুর নাম"

"প" "P" দিয়ে হিন্দু মেয়ে শিশুর নাম"

Hindu Baby Name With "P" (Hindu Girls Name)

পদ্মিনীঃ পদ্মের ঝাড়, পদ্মপুকুর, রূপে গুনে সর্বশ্রেষ্ঠ নারী
পর্ণীঃ পত্রযুক্ত, বৃক্ষ
পল্লবীঃ পাতা, পত্র, বৃক্ষ পল্লব, কিশলয়, নূতন পাতা; নবপত্রযুক্ত কচি ডালের অগ্রভাগ 
পরমাঃ উৎকৃষ্ট, উত্তম সম্বন্ধীয়,  অত্যন্ত, শ্রেষ্ঠ, পরম-এর স্ত্রীলিঙ্গ।  
পাঞ্চালীঃ পাঞ্চাল রাজকন্যা, দ্রৌপদী, কাঠের তৈরি পুতুল।
পাপড়িঃ ফুলের দল, পাতার মত ফুলের কোমল অংশ।
পাপিয়াঃ পক্ষিবিশেষ, কোকিল জাতীয় সুকন্ঠ পাখী।
পার্বতীঃ হিমালয়কন্যা, হিমালয় ও মেনকার কন্যা উমা, দুর্গাদেবী।  
পুরবীঃ রাগবিশেষ, সন্ধ্যাকালে গাইবার উপযুক্ত রাগিণী
পূর্ণাঃ পূর্ণ-এর স্ত্রী লিঙ্গ। পুরা, ভর্তি; সফল, সিদ্ধ (মনোবসনা পূর্ণ হওয়া); অখন্ড, বাকী বা কমতি নাই এমন, সম্পূর্ণ 
পূর্ণিমাঃ যে তিথিতে চন্দ্রের ষোলকলা পূর্ণ হয় অর্থাৎ পূর্ণচন্দ্রের উদয় হয় 
পূর্বাঃ প্রাচী, অতিতকাল, পূর্বদিক;
পূর্বাশাঃ পূর্বদিক
পূর্বিতাঃ অগ্রগণ্যতা, প্রথমে বিবেচিত হবার যোগ্যতা, অগ্রাধিকার, প্রাধান্য, পূর্বগামিতা 
পৃথাঃ কুন্তী, পান্ডুর স্ত্রী, ব্রাহ্মণীবিশেষ
পৌলমীঃ পুলমার কন্যা
পৌষালীঃ পৌষমাস সংক্রান্ত, পৌষজাত, পৌষ মাসে জন্ম
প্রতিমাঃ মূর্তি,দেবতার মূর্তি, প্রতিমূর্তি, রুপক, উপমা,
প্রমীলাঃ রাবণের পুত্র ইন্দ্রজিতের স্ত্রী, তন্দ্রা, অবসাদ; ইন্দ্রজিৎ পত্নী; অর্জুনের পত্নী, 
প্রাচীঃ সকাল, পূর্বদিক, প্রাকার, দেওয়াল
প্রাপ্তিঃ জরাসন্ধের কন্যা, পাওয়া,লাভ, অর্জন
প্রিয়াঃ ভালোবাসার পাত্রী, প্রিয়তমা, প্রেয়সী
প্রীতিঃ ভালোবাসা, সন্তোষ, আহ্লাদ, প্রেম, প্রণয়, বন্ধুত্ব
প্রেমাঃ প্রেম, ভালোবাসা, স্নেহ



শিশুর নামকরন লক্ষনীয়ঃ 


একটি সুন্দর নাম আপনার সন্তানের সারা জিবনের পরিচয়। তাই একটি শিশুর জন্য একটি সুন্দর ও অর্থবহ নাম নির্বাচন করা অত্যন্ত জরুরী। হিন্দু শিশুদের নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় খেয়াল রাখা অতিব জরুরী। যেমনঃ নামের আদ্যক্ষর, নামের হিন্দু ধর্মীয় অর্থ ও ব্যাখ্যা, বর্তমান সামাজিক প্রেক্ষাপট, ইতিহাসে একই নামে বিক্ষাত ও কুক্ষাত ব্যক্তি বা চরিত্র, নামের বাংলা ও ইংরেজি বানান, শ্রুতি মধুরতা ইত্যাদি। এছাড়াও অনেকেই সন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে পিতা-মাতার নামের সাথে মিল, পিতা-মাতার নামের আদ্যক্ষরের মিল, বিখ্যাত মানুষের নামের সাথে মিল, আধুনিক নাম নির্বাচন ইত্যাদি বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। অনেকেই সন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত ছোট ও আধুনিক নাম খুজে থাকেন। 

এখানে মুল কথা হচ্ছে- যে দিক বিবেচনা করে আপনার সন্তানের নাম নির্বাচন করেননা কেন, সকল ক্ষেত্রে উপরে আলোচিত বিষয় গুলো গুরুত্ব দেওয়া উচিত। আপনার খেয়াল-খুশি বা অপরিপক্ক সিদ্ধান্তের কারনে আপনার সন্তান সামাজিক জীবন, শিক্ষা ক্ষেত্র, কর্ম ক্ষেত্রে পদে পদে বিড়ম্বনার শিকার হতে পারে। নামের বানান বা উচ্চারন যদি সরল ও স্বাভাবিক না হয় তবে সৃষ্টি হতে পারে এ ধরনের জটিলতার। আবার, কিছু নাম আছে যা যথেষ্ট অর্থবহ তবুও সমাজে এই শব্দগুলো ব্যাঙ্গাত্ত্বক বা হীন অর্থে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।  এ ধরনের নাম পরিহার করাই শ্রেয়। শুভ হোক আপনার সন্তানের ভবিষ্যৎ।